Home » বিজ্ঞান » জীববিজ্ঞান » বিষ্ময়কর কিছুপ্রাণী,যা দেখে আপনি ভিরমি খেতে বাধ্য

বিষ্ময়কর কিছুপ্রাণী,যা দেখে আপনি ভিরমি খেতে বাধ্য


পৃথিবীতে এমন কিছু প্রাণী আছে যেগুলো সম্পর্কে আপনি কখনো চিন্তাই করতে পারেন না।আসুন যেনে আসি সেসব প্রাণীগুলো সম্পর্কে

লাল ঠুটো বাঁদুড় মাছ
এ কিউট লালঠুটো বাঁদুড়মাছটি সাধারণত গালাপাগোস নামক দ্বীপের আশেপাশে পাওয়া যায়।দেখলেই উনারে মনে হয় কি সেক্সি(নাউযুবিল্লাহ)।তবে মজার ব্যাপার হচ্ছে মাছ হওয়া স্বত্ত্বেও আমাদের এই সেক্সি মাছটি তেমন সাতাঁর কাটতে পারে না।তাই পাতলা ফিন নামক ডানার সাহায্যে উনারা সমুদের তলদেশে লাফিয়ে চলে।(Image credits: imgur)
গ্লোব্লিনহাঙর
এই খবিশ টাইপের মাছটাকে জীবন্ত জীবাশ্ম বা “living fossil” বলা হয়।ধারণা করা হয় এরা ১২৫ মিলিয়ন বছর ধরে বসবাস করে আসছে সাগরের বুকে, তবে উনাকে দেখে যতটা ভয়ঙকর বলে মনে হচ্ছে উনি ততটা ভয়ঙকর নন (Image credits: imgur)
পান্ডাপিঁপড়া
পান্ডার মত দেহসৌষ্ঠব ধারণকারী বলে এ Mutillidae গোত্রের প্রাণীকে পাণ্ডা পিঁপড়া বলা হয়।তবে উনারে দেখতে যতটা কিউট বলে মনে হচ্ছে উনি ততটাই বিষাক্ত।একবার কামড়াইলে তিনদিন পর্যন্ত মনে থাকবে. (Image credits: Chris Lukhaup)
নুনু্সাপ{ঃপি}
হে হে এরকম অশ্লীল টাইপ জিনিসটা প্রথম দেখায় ভুল হইতে পারে।মনে হইতে পারে কেউ মুসলমানি করাইতে গিয়া পুরাটাই কাইট্যা থুইছে।কিন্তু এটা আকারে কিন্তু ওটার (নিজদায়িত্বেবুঝেনেবেন) চেয়ে অনেক বড়।আরেকটা বিরাট দুর্ভাগ্যের বিষয় যে উনি কিন্তু আন্ধা হে হে হে. (Image credits: fotos.noticias.bol.uol.com.br)
UmboniaSpinosa
এই জিনিসটা দেখতে প্রায় ফুলের মত দেখাচ্ছেনা? খুবই কিউট?? এই কিউট প্রাণীটা কিন্তু মোটেও ফুল নয়। এরা প্রায়ই ভয়ঙ্গকর একটা কাজ় করে থাকে। এরা গাছের কচি শীর্ষমুকুল ভেঙ্গে গাছকে প্রায় জরাজীর্ণ করে ফেলে। (Image credits: Colin Hutton)
Lowland Streaked Tenrec
এই ছোট্ট প্রাণীটা আফ্রিকার মাদাগাস্কারে পাওয়া যায়।ছোট্ট এই স্তন্যপায়ী প্রাণীটিই একমাত্র স্তন্যপায়ীদের মধ্যে কীট-পতঙ্গকে আকৃষ্টকারী শব্দ সৃষ্টি করতে পারে। (Image credits: hakoar |telegraph.co.uk)
হামিংবার্ডপতঙ্গ
পাখির মত দেখতে হলেও আসলে এটি কিন্তু পাখি নয়। আপনারা নিশ্চয়ই হামিংবার্ড পাখির নাম শুনেছেন? হ্য এটি হামিংবার্ড পাখির মতই কিন্তু এটি হচ্ছে হামিং বার্ড পতঙ্গ। মজার ব্যাপার হচ্ছে এটী হামিংবার্ডের মত হুবুহু শীষও দিতে পারে। বেশিরভাগ পতঙ্গ বর্ণ দ্বারা আকৃষ্ট হলেও এটী পাখির মত বর্ণ বা রঙ স্বারা ই আকৃষ্ট হয়।
. (Image credits: Jerzy Strzelecki | unknown)
নীলড্রাগন
এই ক্ষুদ্র প্রাণীটি নীল ড্রাগন নামে পরিচিত। এটা স্মুদ্রকীটেরই ভিন্ন একটা প্রজাতি। এটা সমুদ্রের গরম পানি সহ্যু করতে পারেনা। এর উদর দেশে থাকা বায়ুথলির কারণে এরা ঠান্ডা সাগরের পানিতে ভাসতে পছন্দ করে।(Image credits:unknown | unknown | paulhypnos)
সমুদ্রপদ্ম
এটীচিংড়ীমছজাতীয়প্রাণী।(Image credits: Alexander Safonov)
ভেনেজুয়েলান পুডল মথ
এই পোকাটি ভেনেজুয়েলায় ২০০৯ সালে আবিষ্কার করা হয়। উনারে দেখতে খানিকটা এলিয়েনের মত লাগে তাই না?? উনারে লইয়া পরে বিস্তারিত লেখার ইচ্ছে আছে। দেখতে চাইলে আমার ব্লগে চোখ রাখুন। (Image credits: Arthur Anker | imgur)
পাকুড়মাছ
হে হে উনার দন্ত দিয়া ক্লোজআপ ফ্রেশ মার্কা হাসি দেওয়া কোন ব্যাপার না।উনাদের আরেকনাম “ball cutter.” মাছ। এটা আপনাকে বিশদভাবে ব্যখ্যা করার প্রয়োজন নেই যদি আপনি পাপুইয়া নিউগিনির জেলে হন। আমি জানি আপনারা পাপুয়া নিউগিনির জেলে নন। জেলেরা যখন মাছ ধরতে যান তখন পাকু সাহেব জেলেদের অন্ডকোষে কামড় মারতে ভীষণ পছন্দ করেন।্সেজন্যেই পানিতে নামলে পাপুয়া নিউগিনির জেলেরা উনাদের ব্যাপারে ভীষণ সতর্ক থাকেন।(কেইবা পৈত্রিক সম্পত্তি হারাতে চায়!!)(Image credits: imgur | evolvingcomplexityii)
Giant Isopod
তয় এই মিয়া কি জিনিস আমার ঠিক জানা নেই। তবুও এটাও অনেকটা চিংড়ী জাতীয় প্রাণী। (Image credits: Littoraria)
The Saiga Antelope
এই সাইগা নামক হরিণ জাতীয় প্রাণীটির বিশেষ বৈশিষ্ট্য হল এর নাক।এই আজব প্রাণীটি পুরোই ইউরেশিয়া অঞ্চল জুড়ে বিস্তৃত। এর নাক বাঁশির মত নিচের দিকে অনেকটা প্রলম্বিত(Image credits: enews.fergananews.com)
মিস্টার বুশ ভাইপারসাহেব
ট্রপিকাল অঞ্চলের মিঃBush Viper নিশাচর মাংসাশী প্রাণী।দেখতে যতই কিউট আচরণে ততটাই হিংস্র। (Image credits: thegeneralmonk)
নীল তোতা মাছ
এই অদ্ভুদ কর্পোরেট ভাবধারী নীল তোতামাছের দেখা পাওয়া যায় আটলান্টিক মহাসাগরে। ইনাদের জীবনের ৮০ ভাগ সময়ই ব্যয় হয় খাবার আহরণে ।(ফিলিংঃ আমার চেয়ে বড় খাদক আছে,আম্মা শুধু শুধু আমারে দোষ দেয়) (Image credits: imgur | depalmadise
বিদ্রঃ এখানে সকল ছবির ইমেজ ক্রেডিট লিঙ্কসহ দেওয়া আছে যা ক্রিয়েটিভ কমন লাইসেন্সের অন্তর্ভুক্ত। সুতরাং ছবিগুলো ক্রেডিট ছাড়া ব্যাবহার করতে গেলে আপনার ব্যাক্তিগত ব্লগ সাইট, বা ফেসবুক একাউন্ট বা পেজ ব্যান হতে পারে। এ লেখাটিও ক্রিয়েটিভ কমন লাইসেন্সের অন্তর্ভুক্ত তাই লেখকের ক্রেডিট ব্যাতিরেকে ছাপানো,মুদ্রণ ও সংযোজন , কোন অংশ কাটছাট আইনত দণ্ডণীয় অপরাধ।
Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: